,


সংবাদ শিরোনাম:

ঈদযাত্রায় ২০৩ সড়ক দুর্ঘটনায় ২২৪ জন নিহত,৮৬৬ জন আহত: যাত্রী কল্যাণ সমিতি

ঈদযাত্রায় ২০৩ সড়ক দুর্ঘটনায় ২২৪ জন নিহত, ৮৬৬ জন আহত: যাত্রী কল্যাণ সমিতি

ঢাকা, ১৮ আগস্ট ২০১৯, রবিবার:
সদ্য বিদায়ী পবিত্র ঈদুল আযহায় যাতায়াতে দেশের সড়ক-মহাসড়কে ২০৩টি সড়ক দুর্ঘটনায় ২২৪ জন নিহত ও ৮৬৬ জন আহত হয়েছে। সড়ক, রেল ও নৌ-পথে সম্মিলিতভাবে ২৪৪ টি দুর্ঘটনায় ২৫৩ জন নিহত ও ৯০৮ জন আহত হয়েছে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি। 
আজ ১৮ আগস্ট রবিবার দুপুরে নগরীর সেগুনবাগিচাস্থ ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের মহাসচিব মো. মোজাম্মেল হক চৌধুরী ঈদযাত্রায় সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিবেদন-২০১৯ প্রকাশকালে এই তথ্য তুলে ধরেন। সংগঠনটির সড়ক দুর্ঘটনা মনিটরিং সেল প্রতিবছরের ন্যায় এবারো এই প্রতিবেদন প্রকাশ করে। প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রতিবছর ঈদ কেন্দ্রিক সড়ক দুর্ঘটনা আশংকাজনক হারে বেড়ে যাওয়ায় সংগঠনটি ঈদ যাত্রায় সড়ক, রেল ও নৌ-পথে দুর্ঘটনা, অতিরিক্ত ভাড়া আদায় ও যাত্রী হয়রানীর বিষয়টি বিগত ২০১৬ সাল থেকে অত্যান্ত দক্ষতা ও বিশ্বস্থতার সহিত পর্যবেক্ষণ করে আসছে। যা সর্বমহলে প্রশংসিত হওয়ার পাশাপাশি জনসচেতনতা সৃষ্টিতে উল্লেখযোগ্য ভুমিকা রাখছে।

বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেন, বিগত ঈদের চেয়ে এবার রাস্তাঘাটের পরিস্থিতি তুলনামূলক ভালো, নৌ-পথে বেশ কিছু নতুন লঞ্চ বহরে যুক্ত হয়েছে, রেলপথেও বেশ কয়েক জোড়া নতুন রেল ও বগি সংযুক্ত হলেও এবারের ঈদে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের নৈরাজ্য, যানজটের ভোগান্তি, রেলপথে সিডিউল বিপর্যয় ও টিকিট কালোবাজারী, ফেরি পারাপারে ভোগান্তিসহ নানা কারণে যাত্রীহয়রানী বেড়েছে। বিগত ঈদুল ফিতরের ন্যায় এবারের ঈদের লম্বা ছুটি থাকায় যাত্রীসাধারণকে আগেভাগে বাড়ি পাঠানোর সুযোগ কাজে লাগানো গেলে ঈদযাত্রা আরো স্বস্তিদায়ক করা যেতো। রাস্তাঘাটের পরিস্থিতি কিছুটা উন্নতিসহ সার্বিক পরিকল্পনা এবং বিগত ২০১৬ সাল থেকে ঈদযাত্রায় যাত্রী কল্যাণ সমিতির ধারাবাহিক সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিবেদনসমূহ গণমাধ্যম ও সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ গুরুত্ব দিয়ে কাজে লাগানোর কারণে এবারের ঈদে বিগত বছরের তুলনায় সড়ক দুর্ঘটনা ৬.৪০শতাংশ, নিহত ৬.২৫শতাংশ ও আহত ১.৫০শতাংশ কমেছে। এবছর মোট সংঘটিত ২০৩টি সড়ক দুর্ঘটনার ৬৭টি ঘটেছে মোটরসাইকেলের সাথে অন্যান্য যানবাহনের সংঘর্ষে, যা মোট দুর্ঘটনার ৩৩ শতাংশ। যেখানে মোট নিহতের ৩৪.৩৭ শতাংশ এবং মোট আহতের ৮.৪২ শতাংশ । অন্যদিকে পথচারীকে গাড়ী চাপা দেয়ার ঘটনা ৫২.২১ শতাংশ ঘটেছে। আগামী ঈদে এ দুটি ঘটনা এড়ানো সম্ভব হলে সড়ক দুর্ঘটনার প্রায় ৮৫.২১ শতাংশ নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হবে বলে আমরা মনে করি।

ঈদযাত্রার ১২ দিনে বাইক দুর্ঘটনার পরিসংখ্যান ঃ

তারিখ বাইক দুর্ঘটনার সংখ্যা নিহত আহত

০৬ আগস্ট ২০১৯ ০৩ ০৪ ০৩
০৭ আগস্ট ২০১৯ ০৮ ১০ ১২
০৮ আগস্ট ২০১৯ ০২ ০৪ ০১
০৯ আগস্ট ২০১৯ ০৮ ১০ ০৫
১০ আগস্ট ২০১৯ ০৪ ০৩ ০২
১২ আগস্ট ২০১৯ ০৯ ১৩ ১২
১৩ আগস্ট ২০১৯ ০৭ ০৭ ০৪
১৪ আগস্ট ২০১৯ ০৭ ০৬ ১১
১৫ আগস্ট ২০১৯ ০৫ ০৬ ০৬
১৬ আগস্ট ২০১৯ ০৭ ০৮ ০৭
১৭ আগস্ট ২০১৯ ০৭ ০৬ ১০
১২ দিনে———->        সর্বমোট= ৬৭
৭৭
৭৩
ঈদ যাত্রা শুরুর দিন ০৬ আগস্ট থেকে ঈদ শেষে বাড়ি থেকে কর্মস্থলে ফেরা ১৭ আগস্ট পর্যন্ত বিগত ১২ দিনে ২০৩টি সড়ক দুর্ঘটনায় ২২৪ জন নিহত ও ৮৬৬ জন আহত হয়েছে। এসব ঘটনায় ৩৭জন চালক, ০৩জন শ্রমিক, ৭০জন নারী, ২২জন শিশু, ৪২জন ছাত্র-ছাত্রী, ০৩জন সাংবাদিক, ০২জন চিকিৎসক, ০৮জন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারীবাহিনীর সদস্য, ০৩জন রাজনৈতিক নেতা, ৯০০ জন যাত্রী ও পথচারী সড়ক দুর্ঘটনার শিকার হয়েছে।
উল্লেখিত সময়ে রেল পথে ট্রেনে কাটা পড়ে ১১টি, ট্রেনের ছাদ থেকে পড়ে ০১ টি , ট্রেন যানবাহন সংঘর্ষে ০১ টি, ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার ০১টি ঘটনায় মোট ১৩ জন নিহত ও ১৫জন আহত হয়েছে। একই সময়ে নৌ-পথে ২৪টি ছোটখাট বিচ্ছিন্ন দুর্ঘটনায় ১৬ জন নিহত, ৫৯ জন নিখোঁজ ও ২৭ জন আহত হয়েছে।
বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির সড়ক দুর্ঘটনা মনিটরিং সেলের সদস্যরা বহুল প্রচারিত ও বিশ্বাসযোগ্য ৪১টি জাতীয় ও আঞ্চলিক দৈনিক ১১টি অনলাইন দৈনিকে প্রকাশিত সংবাদ মনিটরিং করে এ প্রতিবেদন তৈরি করে। প্রতিবেদন অনুযায়ী উল্লেখিত সময়ে সড়ক দুর্ঘটনার সংখ্যা নি¤œরূপ:
তারিখ সড়ক দুর্ঘটনার সংখ্যা নিহত আহত
০৬ আগস্ট ২০১৯ ১৮ ২০ ৪১
০৭ আগস্ট ২০১৯ ১৫ ১৫ ৬৩
০৮ আগস্ট ২০১৯ ০৭ ০৭ ১৬
০৯ আগস্ট ২০১৯ ২০ ১৯ ৩০
১০ আগস্ট ২০১৯ ১৪ ১৪ ২০
১১ আগস্ট ২০১৯ ০৭ ০৬ ২০
১২ আগস্ট ২০১৯ ২০ ২৭ ৫২
১৩ আগস্ট ২০১৯ ২৪ ২৬ ৭৬
১৪ আগস্ট ২০১৯ ১৬ ১৫ ১১৬
১৫ আগস্ট ২০১৯ ২১ ৩০ ২২১
১৬ আগস্ট ২০১৯ ২২ ২৭ ১৩৪
১৭ আগস্ট ২০১৯ ১৯ ১৮ ৭৭
১২ দিনে————        সর্বমোট ঃ ২০৩
২২৪
৮৬৬
বিগত ০৪ বছরের পবিত্র ঈদুল আযহায় ঈদযাত্রায় সড়ক পথে দুর্ঘটনার তুলনামূলক চিত্র ঃ
সাল সড়ক দুর্ঘটনা
দুর্ঘটনা নিহত আহত
২০১৬ ১৯৩ ২৪৮ ১০৫৫
২০১৭ ২১৪ ২৫৪ ৬৯৬
২০১৮ ২৩৯ ২৫৯ ৯৬০
২০১৯ ২০৩ ২২৪ ৮৬৬
এইসময় রাজধানীর সবুজবাগের বাসাবোতে সিএনজি ধাক্কায় পুলিশের সিআইডির এএসআই আনোয়ার হোসেন নিহত হয়েছে। টাঙ্গাইল মির্জাপুরে নৌ-বাহিনী সদর দপ্তরের গোয়েন্দা শাখায় কর্মরত কর্পোরাল নাজমুল হোসেন মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ট্রাকের নিচে চাপা পড়ে নিহত হয়েছে। সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জে কামারের চক এলাকায় বাসের চাপায় দৈনিক সাতমাথা পত্রিকার সাংবাদিক দম্পতি নিহত হয়েছে। কুমিল্লার ভবেরচরে ট্রাক ও বিপরীতমুখী মাইক্রোবাসকে চাপা দিলে দেবিদ্বার উপজেলার বিএনপি সভাপতি ও আইনজীবী মোঃ ফরিদউদ্দিন নিহত হয়েছে। নাটোরের বড়াইগ্রামে মাইক্রোবাস ও পিকআপ সংঘর্ষে পুলিশের এএসপি হারুনার রশীদসহ ০২জন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। যেখানে ময়মনসিংহের গৌরীপুরে বাস-কার সংঘর্ষে একই পরিবারের ০৫ সদস্য নিহত এবং ০১ শিশু গুরুতর আহত হয়েছে। সিরাজগঞ্জের বেলকুচিতে বাসের ধাক্কায় অটোভ্যানের ১১ যাত্রী হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। যার মধ্যে ১০জনই একই পরিবারের সদস্য ছিল। নরসিংদীর শিবপুরে বাস কারের নব দম্পতিসহ ০২ শিক্ষার্থী নিহত হয়েছে। ঝিনাইদহর কালীগঞ্জে বাইক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে স্থানীয় প্রতিনিধি বৈশাখী টিভি ও ইত্তেফাকের রফিকুল ইসলাম এবং আমাদের সময় ও আনন্দ টিভির মানিক ঘোষ আহত হয়।
সংগঠিত দুর্ঘটনা বিশ্লেষণে দেখা যায়, ২৭.৪ শতাংশ বাস, ২৬.৩৩ শতাংশ মোটরসাইকেল ১৬.৪ শতাংশ ট্রাক, পিকআপ, কাভার্ডভ্যান, লরি, ৭.৮২ শতাংশ কার-মাইক্রো, ১৩.৫২ শতাংশ অটোরিক্সা, ৩.৫৫ শতাংশ নছিমন-করিমন ও ৪.৯৮ শতাংশ ব্যাটারি রিকশা ও ইজিবাইক এসব দুর্ঘটনায় জড়িত ছিল।
সংগঠিত দুর্ঘটনার ২১ শতাংশ মুখোমুখি সংঘর্ষ, ৫২.২১ শতাংশ পথচারীকে গাড়ি চাপা দেয়ার ঘটনা, ১৭ শতাংশ নিয়ন্ত্রন হারিয়ে খাদে পড়ার ঘটনায় ও ৯.৮৫ শতাংশ অনান্য অজ্ঞাত কারনে দুর্ঘটনা সংগঠিত হয়েছে।
যাত্রী কল্যাণ সমিতির পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে ,

১. বেপরোয়া গতিতে যানবাহন চালানো।
২. ফিটনেসবিহীন যানবাহন ও পণ্যবাহী যানবাহনে যাত্রী বহন।
৩. পণ্যবাহী যানবাহন বন্ধের নিষেধাজ্ঞা অমান্য।
৪. অদক্ষ চালক ও হেলপার দ্বারা যানবাহন চালানো।
৫. বিরামহীন ও বিশ্রামহীণভাবে যানবাহন চালানো।
৬. মহাসড়কে অটোরিক্সা, ব্যাটারি চালিত রিক্সা, নসিমন-করিমন ও মোটর সাইকেল অবাধে চলাচল।
৭. সড়ক-মহাসড়কে ফুটপাত না থাকা।
৮. ঈদ ফেরত যাতায়াতে মনিটরিং ব্যবস্থা না থাকা বা মনিটরিং এ শিতিলতা।
৯. মোটরসাইকেলে ঈদযাত্রা এসব দুর্ঘটনার জন্য দায়ী।

সুপারিশমালা:

(১) চালক প্রশিক্ষণ, লাইসেন্স ইস্যু পদ্ধতি আধুনিকায়ন, যানবাহনের ফিটনেস প্রদান পদ্ধতি আধুনিকায়ন, রাস্তায় ফুটপাত-আন্ডারপাস-ওভারপাস নির্মাণ, জেব্রা ক্রসিং অংকন, দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধান ও গবেষণা, ডিজিটাল ট্রাফিক ব্যবস্থা প্রবর্তনসহ সড়ক নিরাপত্তায় ব্যাপক কার্যক্রম গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করা।
(২) জাতীয় সড়ক নিরাপত্তা কাউন্সিলকে সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধের কার্যকর প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তোলা।
(৩) চালক প্রশিক্ষণের জন্য সরকারি ও বেসরকারিভাবে ব্যাপক কার্যক্রম গ্রহণ করা।
(৪) ঈদযাত্রায় অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের নৈরাজ্য বন্ধ করা।
(৫) ওভারলোড নিয়ন্ত্রণে মানসম্মত পর্যাপ্ত গণপরিবহনের ব্যবস্থা করা।
(৬) মহাসড়কে গতি নিরাপদ করা, ধীরগতি ও দ্রুত গতির যানের জন্য আলাদা আলাদা লেইনের ব্যবস্থা করা।
(৭) মোটরসাইকেলে ঈদযাত্রা নিষিদ্ধ করা।
(৮) ফিটনেসবিহীন লক্কড়ঝক্কড় ঝুঁকিপূর্ণ যানবাহন চলাচল বন্ধের আদেশ শতভাগ কার্যকর করা।
(৯) সড়ক নিরাপত্তায় ইতিমধ্যে যেসব সুপারিশ প্রণীত হয়েছে তা দ্রুত বাস্তবায়ন করা।
(১০) ঈদের আগের ন্যায় ঈদের পরেও সড়ক-মহাসড়কে মনিটরিং ব্যবস্থা জোরদাড় রাখা।
(১১) চালক-শ্রমিকদের যুগোপযোগী বেতন, বোনাস ও কর্মঘন্টা নিশ্চিত করার পাশাপাশি বিরতি ও বিশ্রামের ব্যবস্থা রাখা ।
(১২) যানবাহনের যাত্রার আগে ত্রুটি পরীক্ষা করা।
উক্ত সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, আইয়ুবুুর রহমান, সাবেক চেয়ারম্যান. বিআরটিএ। পলাশ মাহমুদ, নির্বাহী পরিচালক, কনসাস কনজুমার সোসাইটি। কেফায়েত শাকিল, আহ্বায়ক, যাত্রী অখিকার আন্দোলন।তাওহীদুল হক ,ভাইস চেয়ারম্যান, যাত্রী কল্যাণ সমিতিসহ প্রমুখ।

বার্তা প্রেরক,
মোঃ মোজাম্মেল হক চৌধুরী
মহাসচিব
০১৭৪৩-৭৭৯৬৭২

একনজরে সারাদেশে রেলপথে দুর্ঘটনার চিত্র

তারিখ রেল দুর্ঘটনার সংখ্যা নিহত আহত
ট্রেনে ধাক্কা / কাটা পড়ে ১১ ১২ ১৫
ট্রেন – যানবাহন সংঘর্ষ ০১ ০০ ০০
ট্রেনের ছাদ থেকে পড়ে ০১ ০১ ০০
ট্রেনের নিচে ঝাঁপ ০১ ০০ ০০
অন্যান্য ( বগি লাইনচ্যুত / ইঞ্জিন বিকল ) ০৩ ০০ ০০
                               সর্বমোট ঃ ১৭ ১৩ ১৫
একনজরে সারাদেশে নৌ-পথে দুর্ঘটনার চিত্র
তারিখ নৌ দুর্ঘটনার সংখ্যা নিহত নিখোঁজ আহত
নৌকা/ট্রলার/লঞ্চ/জাহাজ/স্পিড বোট ডুবি ১৫ ১১ ৫৯ ২২
নৌকা/ট্রলার/লঞ্চ/জাহাজ/স্পিডবোট থেকে পড়ে/ ফেলে ০৫ ০৩ ০০ ০৫
লঞ্চ/নৌকা/ট্রলার/জাহাজ/ স্পিড বোট ধাক্কা ০১ ০১ ০০ ০০
অন্যান্য ( নৌ দুর্ঘটনা/ ডাকাতি/ ট্রলার বিকল ) ০৩ ০১ ০০ ০০
সর্বমোট ঃ ২৪
১৬
৫৯
২৭
সড়ক, রেল, নৌ-পথে সম্মিলিতভাবে দুর্ঘটনা
পথ দুর্ঘটনার সংখ্যা নিহত আহত
সড়ক ২০৩ ২২৪ ৮৬৬
রেল ১৭ ১৩ ১৫
নৌ ২৪ ১৬ ২৭
সর্বমোট ঃ ২৪৪
২৫৩
৯০৮

50,611 total views, 1 views today

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

প্রকাশিত সংবাদ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি,পাঠকের মতামত বিভাগে প্রচারিত মতামত একান্তই পাঠকের,তার জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়।

Developed By H.m Farhad

Skip to toolbar