,


সংবাদ শিরোনাম:
«» কমিশনার ভাতিজা ধর্ষন মামলায় খুজছে! «» ফিফা র‌্যাংকিয়ে বড় সুখবর পেল বাংলাদেশ «» আমাদের প্রতি জনগণের আস্থা বেড়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা «» অবশেষে ভাগ্যে জুটেছে হুইল চেয়ার কিশোরগঞ্জে «» দিশাবন্দে কোর্টের রায় অমান্য করে বাড়ী নির্মাণের অভিযোগ «» উত্তরার রাজপথ দখলরাজত্ব শাসনে অশান্তিতে জনজীবন (১) «» কুমিল্লা লালমাইয়ে শ্রমিক অফিসে সন্ত্রাসী হামলা (ভিডিওসহ) «» নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়‘স্বদেশ বাসে গার্মেন্টস শ্রমিক ধর্ষণচেষ্টা… «» নরসিংদীতে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে জান্নাতির হত্যাকারীরা“মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের দিন কাটছে আতঙ্কে… «» ছিনতাইকারী চক্রের ১১ সদস্যকে আটক করেছে (র‌্যাব)

নুসরাত হত্যার তদন্ত শুরু

নুসরাত হত্যার তদন্ত শুরু

ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়ফাজিল মাদ্রাসা কেন্দ্রে আলিম পরীক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফিকে (১৮) পুড়িয়ে হত্যার ঘটনা তদন্ত শুরু করেছে জেলা প্রশাসনের তদন্ত কমিটি।

বৃহস্পতিবার দুপুরে তদন্ত কমিটির প্রধান অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) পিকেএম এনামুল করিমের নেতৃত্বে তিন সদস্যের প্রতিনিধি দল নুসরাত জাহান রাফির মাদরাসায় যায়। মাদরাসার অভ্যন্তরে সাইক্লোন শেল্টারের তিনতলার ছাদে, যেখানে নুসরাত জাহান রাফির গায়ে আগুন দেয়ার ঘটনা ঘটে সেটি পরিদর্শন করেন তদন্ত দলের সদস্যরা।

৬ এপ্রিল মাদরাসার অভ্যন্তরে সাইক্লোন শেল্টারের তিনতলার ছাদে নিয়ে আলিম পরীক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফির গায়ে আগুন দেয়ার ঘটনা ঘটে। ঘটনার পরদিন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) পিকেএম এনামুল করিমকে প্রধান করে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। সোনাগাজী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহেল পারভেজ এবং জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা কাজী সলিম উল্যাহকে তদন্ত কমিটির সদস্য করা হয়।

তদন্ত কমিটিকে তিনদিনের মধ্যে রিপোর্ট দিতে নির্দেশ দেন জেলা প্রশাসক ওয়াহিদুজ্জামান। কিন্তু তিন কার্যদিবস (১০ এপ্রিল) বুধবার শেষ হলেও কাজ শুরুই করতে পারেনি তদন্ত কমিটি। ফলে ওইদিন জেলা প্রশাসক বরাবর তদন্ত কমিটির প্রধান অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) এনামুল করিম আরও সাতদিন সময় বাড়ানোর আবেদন করলেও সময় বাড়ানো হয়। তবে কতদিন সময় বাড়ানো হয়েছে তা জানানো হয়নি।

তদন্ত কমিটির প্রধান ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) পিকেএম এনামুল করিম বলেন, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে তদন্ত শুরু না হলেও বৃহস্পতিবার থেকে তদন্ত শুরু হয়েছে। জেলা প্রশাসক যত দিন সময় বর্ধিত করবেন ওই সময়ের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেব আমরা।

৬ এপ্রিল শনিবার সকালে আলিম পরীক্ষা দিতে সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসায় যান নুসরাত জাহান রাফি। ওই সময় তার বান্ধবী নিশাতকে ছাদের উপর কেউ মারধর করেছে এক ছাত্রীর এমন সংবাদে ভবনের চারতলায় যান তিনি। সেখানে মুখোশ পরা চার-পাঁচ ছাত্রী তাকে অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলার বিরুদ্ধে মামলা ও অভিযোগ তুলে নিতে চাপ দেয়। এতে অস্বীকৃতি জানালে তার গায়ে আগুন দিয়ে পালিয়ে যায় তারা।

এ ঘটনায় অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলা ও পৌর কাউন্সিলর মুকছুদ আলমসহ আটজনের নাম উল্লেখ করে সোনাগাজী মডেল থানায় মামলা করেন নুসরাত জাহান রাফির বড় ভাই মাহমুদুল হাসান নোমান।

এরই মধ্যে বুধবার রাত সাড়ে ৯টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় নুসরাত জাহান রাফি মারা যান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

প্রকাশিত সংবাদ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি,পাঠকের মতামত বিভাগে প্রচারিত মতামত একান্তই পাঠকের,তার জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়।

Developed By H.m Farhad

Skip to toolbar