শিশুদের যৌন হয়রানির অভিযোগে ব্রিটিশ গ্রেপ্তার

অনলাইন ডেস্ক

ভারতে তিন শিশুকে যৌন হয়রানির অভিযোগে ৫৪ বছর বয়সী এক ব্রিটিশ নাগরিককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। দৃষ্টিপ্রতিবন্ধীদের একটি হোস্টেলের তিন শিশু তাঁর বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ দেওয়ার পর আজ সোমবার পুলিশ তাঁকে গ্রেপ্তার করে। খবর এএফপির।

দিল্লি পুলিশের ডেপুটি কমিশনার ঈশ্বর সিং এএফপিকে বলেন, ‘গ্রেপ্তার করা ব্রিটিশ নাগরিক মুরে ওয়ার্ড গত বছরের অক্টোবর থেকে ভারতে অবস্থান করছেন। আমরা তাঁর বিরুদ্ধে যৌন হয়রানি থেকে শিশুদের সুরক্ষা আইনে মামলা করেছি।’ ওই ব্রিটিশ নাগরিককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হচ্ছে বলে জানান ঈশ্বর সিং।

দোষী সাব্যস্ত হলে ওয়ার্ডকে সর্বনিম্ন ১০ বছরের কারাদণ্ড ভোগ করতে হতে পারে। এ বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে নয়াদিল্লিতে অবস্থিত ব্রিটিশ হাইকমিশনের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

পুলিশ জানায়, ব্রিটিশ ওই নাগরিক প্রায়ই অন্ধদের একটি হোস্টেলে যেতেন। পুলিশ তাঁর উদ্দেশ্য ও অনলাইন কর্মকাণ্ড তদন্ত করে দেখছে। ঈশ্বর সিং বলেন, ‘ব্রিটিশ ওই নাগরিকের ল্যাপটপ, মোবাইল ও ব্যক্তিগত কথোপকথনের রেকর্ড যাচাই করে মনে হচ্ছে, যৌনতার ক্ষেত্রে শিশুদের প্রতি তাঁর আকর্ষণ রয়েছে।’ তবে এ বিষয়ে ঈশ্বর সিং বিস্তারিত কিছু জানাননি।

ঈশ্বর সিং জানান, অভিযোগকারী শিশুদের সঙ্গে কথা বলার জন্য শিশু মনোরোগ বিশেষজ্ঞ নিয়োগ করবে পুলিশ।

অভিযোগকারী শিশুদের বয়স ও পরিচয় প্রকাশ করেনি পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে, কর্তৃপক্ষ হোস্টেলটির অন্য শিশুদের সঙ্গেও কথা বলবে। ওই হোস্টেলটিতে দৃষ্টিশক্তিহীন ১৭০ জন ছাত্র রয়েছে।

সূত্রঃ দৈনিক প্রথম আলো






Related News

  • নারীদের বোকা বলে নিষিদ্ধ হলেন সৌদি ইমাম
  • রোহিঙ্গা শিশুদের ফেরত পাঠাবে না পশ্চিমবঙ্গ
  • রাখাইনে ‘ন্যাশনাল রেস’র নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করতে হবে: মিয়ানমার সেনাপ্রধান
  • স্ত্রীর থেকে নিস্তার পেতে এক ঘুষিতে পুলিশকর্তার নাক ফাটিয়ে জেলে গেলেন স্বামী!
  • মালয়েশিয়ার মাদ্রাসায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড, নিহত ২৫
  • ভারতে যাওয়া রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়ার দাবি
  • ১২ বছরের রোহিঙ্গা জসিমের বিশ্বের কাছে বার্তা
  • একবার ঘোষনা দিন “যার যা আছে তা নিয়েই রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়াও” দেখবেন শরীরের রক্ত বিক্রি করে হলেও মানুষ এগিয়ে যাচ্ছেঃ প্রধানমন্ত্রীর প্রতি লক্ষ লক্ষ তরুন
  • Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *