Logo
,


সংবাদ শিরোনাম:
«» তাহিরপুর সীমান্তে বিজিবি’র তদারকির অভাবে চোরাচালান বৃদ্ধি শতটন অবৈধ কয়লা পাচার,আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ চোরাচালানি চক্র! «» সুনামগঞ্জে পৌনে চার কোটি টাকার মাদকদ্রব্য ধ্বংস        «» বিএনপি ভেঙে গেছে’ «» কুমিল্লা মহানগরীর ১৯নং ওয়ার্ডে শীতবস্ত্র কম্বল বিতরণ করা হয় «» মুলাদীতে ৩য় শ্রেনীর স্কুল ছাত্রী ধর্ষণ ॥ মামলা দায়ের «» কুলাউড়ায় রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার আওয়ামীলীগের কয়েকটি পরিবার! «» মাদারীপুরের অ্যাডভোকেট মহসিন একটু সাহায্যেই বেঁচে যাবে ভারতের মনিপাল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন? «» চেয়ারম্যানের দায়িত্বে জিএম কাদের এরশাদের অবর্তমানে «» এরশাদ সত্যিই অসুস্থ-পরশু সিঙ্গাপুর যাবেন-অসুস্থতা নিয়ে নানা প্রচারণা… «» চলচ্চিত্রের অভিনেতা তানভীর হাসানের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

সাংবাদিকদের নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা সরকারকেই করতে হবে

শাহবাগে মানববন্ধন কর্মসূচী
‘সাংবাদিকদের নিরাপত্তা ও অধিকার রক্ষায় সরকারকে এখনই ভাবা উচিত’
ঢাকা ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮:
ফেডারেশন অব বাংলাদেশ জার্নালিস্ট অর্গানাইজেশন এফবিজেও চেয়ারম্যান এসএম মোরশেদ বলেছেন, সাংবাদিকদের নিরাপত্তা ও অধিকার রক্ষায় সরকারকে এখনই ভাবা উচিত। আর এই ভাবনার এখনই সময়। দেশ গঠনের পর থেকেই সাংবাদিকরা নির্যাতিত-নিষ্পেষিত হয়ে আসছে। এনিয়ে ধীরেধীরে পুঞ্জিভুত ক্ষোভের বহি:প্রকাশও ঘটতে শুরু করেছে। শাহবাগে অনশন কর্মসূচীর মধ্যদিয়ে সারাদেশের সাংবাদিকরা ঐক্যবদ্ধ হতে শুরু করেছে। তাই সাংবাদিকদের অধিকার এবং স্বাধীনতা পরবর্তী সকল সাংবাদিক হত্যার বিচারের এখনই সময়।
বুধবার ৫ সেপ্টেম্বর শাহবাগ চত্বরে ফেডারেশন অব বাংলাদেশ জানালিস্ট অর্গানাইজেশন এফবিজেও আয়োজিত মানববন্ধন ও সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
এ সময় বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম বিএমএসএফ কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক আহমেদ আবু জাফর তার বক্তব্যে বলেন, দেশে স্বাধীনতা পরবর্তী ৩৯জন সাংবাদিক পেশাগত কাজ করতে গিয়ে হত্যার শিকার হয়েছেন। সাংবাদিক হত্যার বিচারহীনতার সংস্কৃতি দেশে চলমান থাকায় এদেশের সাংবাদিকরা নিরাপত্তাহীনতার মাঝে কাজ করছে। এই বিচারহীনতার সংস্কৃতি থেকে দেশকে বেরিয়ে আসতে হবে। তাই স্বাধীনতা পরবর্তী সাংবাদিক হত্যাকান্ডের ৩/৪জন সাংবাদিক হত্যার নামমাত্র বিচার হলেও বাকি হত্যাকান্ডগুলোর বিচার কিংবা আদালতে চার্জশীট আজ পর্যন্ত দেয়া হয়নি। যেমন যশোরের দৈনিক রানার পত্রিকার সম্পাদক মুকুল রানা হত্যাকান্ড গত ৩০ আগস্ট ২০বছর পেরিয়ে গেলেও বিচার হয়নি। তেমনি বিএমএসএফ রংপুর জেলা কমিটির সদস্যসচিব মশিউর রহমান উৎসকে ২০১৬ সালের ২৩ ডিসেম্বর রাতে কর্মস্থল থেকে ফেরার পথে সন্ত্রাসীরা এলোপাথারি কুপিয়ে হত্যা করে। আজো চার্জশীট মেলেনি। তেমনি সাগর-রুনি হত্যাকান্ড। নতুন এই মিছিলে যোগ দিয়েছে নদী হত্যাকান্ড। অবিলম্বে এই সকল হত্যাকান্ডের মামলাগুলোকে দ্রুত বিচার আইনে বিচারিক আদালতে নিস্পত্তির জন্য সরকারের প্রতি দাবি জানাচ্ছি। এছাড়াও সারাদেশে বিভিন্ন সময় সাংবাদিকদেরকে হয়রাণী,নির্যাতন,মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর ঘটনাগুলোকে সরকার আমলে নিয়ে সরকার সাংবাদিকদের ন্যায়বিচার নিশ্চিত করে সাংবাদিক নির্যাতন বন্ধে যুগোপযোগি আইন প্রণয়ন করা হবে বলে বিএমএসএফ আশা করে।
সমাবেশে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ফেডারেশনের স্থায়ী কমিটির সদস্য ও জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার চেয়ারম্যান লায়ন নুরুল ইসলাম, বাংলাদেশ অনলাইন গণমাধ্যম এসোসিয়েশন চেয়ারম্যান কাজী ফারুক, বিএমএসএফ’র আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক হাবিব সরোয়ার আজাদ, দৈনিক মাতৃছায়া প্রকাশক এমএ মোতালেব, জুরাইন প্রেসক্লাব সভাপতি সোহেল রানা ও কামাল হোসেন প্রমুখ।
এছাড়্রাও সমাবেশে সারাদেশ থেকে আসা বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ অংশ নেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

প্রকাশিত সংবাদ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি,পাঠকের মতামত বিভাগে প্রচারিত মতামত একান্তই পাঠকের,তার জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়।
Skip to toolbar