,


সংবাদ শিরোনাম:

সুনামগঞ্জ তাহিরপুরে মদ খেয়ে ২ চুরেরে দন্ধ চড়মে :; অর্থের লোভে অন্যদের নামে থানায় অভিযোগ

 সুনামগঞ্জ তাহিরপুরে মদ খেয়ে ২ চুরেরে দন্ধ চড়মে অর্থের লোভে অন্যদের নামে থানায় অভিযোগ

বিশেষ প্রতিনিধি :;

বিভিন্ন তথ্য ও অভিযোগে সূত্রে জানাযায়, তাহিরপুর উপজেলার উত্তর শ্রীপুর ইউনিউনের ট্যাকেরঘাট বড়ছড়া গ্রামের
দুলাল মিয়ার ছেলে রাজিব মিয়া (চুর) ও একই গ্রামের আবুল কাশেমর(রাজমিস্তী ) ছেলে নাজমুল দুজন ভারত থেকে চুরি করে নিয়ে আসা মেশিন ও কিছু যন্ত্রপাতির ভাগ বাটোয়ারা নিয়ে দোকানে কথা কাটাকাটি হয় এক পর্যায়ে রাজিব নাজমুল কে তাদের বাড়িতে নিয়ে যায় চুরির ভাগ দিবে বলে পরবর্তীতে রাজীব চুরির টাকা দিতে অস্বীকার করলে তাদের মধ্যে রাজীবের ঘরে মারামারির সৃষ্টি হয় এবং নাজমুল কে চিরতরে শেষ করেদিবে বলে রাজীবরা নাজমুলের সাথে দস্তা দস্তি করে রাজীবের বাবা ও তার মা আহত হয় উল্ঠো।শক্তিশালীনাজমুলের সাথে তারা পেরে উঠতে পারেনি পরবর্তীতে নাজমুল তার বাড়িতে গিয়ে আবার বাঁশ নিয়ে দৌড় দেয় রাজীবের বাড়ি দিকে আসে তার আত্মীয়রা তাকে ফেরাতে গিয়ে দেখেন লংকা কান্ড পরে রাজীবের আব্বার আঙুল কাটা তার আম্মার মাথা দিয়ে রক্ত পড়ছে । পরবর্তীতে রাজীবরা স্থানীয় ডাক্তারের কাছে প্রাথমিক চিকিৎসার নিয়ে সুনামগঞ্জ উন্নত চিকিৎসার জন্য যায়।এবং নাজমুল ও রাজীবের চুরির ঝগড়া যে চড়মে পৌঁছেছে তার সাথে যারা জড়িত নয় তাদের কে মামলা দিয়ে ফাঁসানোর হুমকি দিয়ে ২ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবী করে।সোনালী,ছালাম ,কালাম, আমির আলী ,মাফিক, হেলাল,পিয়ারা,শাহেরাসহ প্রায় ১৬/১৭ জন কে ফাঁসিয়ে দিবে বলে জানায় রাজীবরা।

প্রত্যক্ষদর্শী ও সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানাযায়, নাজমুল ছাড়া অন্যান্যরা এসবের সাথে জড়িত নয় ।

স্থানীয়রা জানায়, নাজমুল ছাড়া এখানে কাউকে রাজীবের পরিবারের উপর আক্রমণ বা দস্তা দস্তি করতে দেখিনি ।তার আত্মীয়রা এসে নাজমুল কে সামাল দিয়ে নিয়ে যায় । তাদের হাতে কোনো দা,বাশঁ বা দেশীয় অস্ত্র ছিল না।

প্রত্যক্ষদর্শী ও সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানাযায়, নাজমুল ছাড়া অন্যান্যরা এসবের সাথে জড়িত নয় ।তার আত্মীয়রা এবং আমরা রাজিব ও তার বাবা মা কে আহত অবস্থায় পেয়েছি এর আগের ঘটনা নাজমুল আর তারা ৩ জনের মধ্যে কি হয়েছিল তা কেউ দেখেনি।

স্থানীয়রা জানায়, নাজমুল ছাড়া এখানে কাউকে রাজীবের পরিবারের উপর আক্রমণ বা দস্তা দস্তি করতে দেখিনি তাদের হাতে কেউ কোনো অস্ত্র অথবা দা,বাশঁ,দেখেনি।তার আত্মীয়রা এসে নাজমুল কে সামাল দিয়ে নিয়ে যায় ।
এ বিষয়ে নাজমুল কাছে জানতে চাইলে সে বলে,আমাকে রাজিব টাকা দেওয়া কথা বলে তারা বাড়িতে নিয়ে যায় এবং সে ঘরে নিয়ে টাকা না দিয়ে হুমকি দমকি দেয় এক পর্যায়ে দস্তা দস্তি শুরু হয় তারা মা বাবা আমার সাথে দস্তা দস্তি করে ঘরের বিতরে তখন বাহিরের কেউ ছিল না তখন তারা জখম হয়।কিছুক্ষণ পর আমার আত্মীয়রা এসে আমাকে উত্তেজিত অবস্থায় সামাল দিয়ে নিয়ে যায় তখন আমাকে ফিরিয়ে নিয়ে যায় তখন ৩ \৪ জন ছিল এর আগের ঝগড়া কেউ দেখেনি।

এবিষয়ে রাজীবের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তার মুঠোফোন বন্ধ থাকায় তার মন্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

এবিষয়ে এলাকার গন্যমান্যরা বলেন,যে অপরাধ করছে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া উচিত তবে অযথা কাউকে হয়রানি করাও অনুউচিত।

এ বিষয়ে সুনামগঞ্জ হিজড়া কল্যাণ সমিতির সভাপতি সর্নালি কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন,যে অপরাধ করছে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হউক তবে অযথা অন্য কাউকে হয়রানি করানো যুক্তিহীন।

রাতে তাদের ভারত থেকে আনা চোরাই মালামাল বাগবাটোযারা নিয়ে দন্ধ হয় এর পরের দিন সকালে প্রায় ১২ ঘটিকায় রাজীবের বাড়িতে বিজিবি অভিযান চালায় তাদের বাড়িতে বিজিবি তথ্য পাওয়ার আগেই ভারতীয় একটি মেশিন কিছু যন্ত্রপাতি রাজীবের আত্মীয়-স্বজনরা অন্যত্র পাচার করে দেয় বিদায় অভিযানে একটি ভারতীয় চুরাই হিরো সাইকেল ঘরের দরজা রট ও তালা বাঙ্গার জন্য রেখে যাওয়া একটি ডিল মেশিন পায় বিজিবি বিষয়টি নিশ্চিত করেন ট্যাকেরঘাট বর্তমান বিজিবি ক্যাম্প কমান্ডার।

এবিষয়ে তাহিরপুর থানার ওসি আতিকুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি তদন্তের দায়িত্বরত অফিসার দীপঙ্করের কাছে মুঠোফোন দিলে তিনি এ বিষয়ে কোনো তথ্য না দিয়ে তিনি কিসের একটি ব্যাগের খোঁজ করছিলেন এবং এ প্রতিবেদক কে বলেন,আমি আপনাকে কিছুক্ষণ পরে কল দিব ১৪ ঘন্টা পেরিয়ে গেলেও এ তদন্ত কর্মকর্তা আর কোন কল দেয়নি।

31,457 total views, 1 views today

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

প্রকাশিত সংবাদ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি,পাঠকের মতামত বিভাগে প্রচারিত মতামত একান্তই পাঠকের,তার জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়।

Developed By H.m Farhad

Skip to toolbar