,


সংবাদ শিরোনাম:
«» শেখ হাসিনার সামাজিক উন্নয়ন নিরাপত্তা বেষ্টনী -সমাজের সকল শ্রেণীর মানুষের সহায়তায় «» নূরুল কোরআন মাদ্রাসা,আরিচপুর ওয়াজ ও দোয়া মাহফিল «» জাতীয় পার্টি নৌকার ভোট প্রচারে মাঠে সাহারা খাতুরেন সাথে আলোচনায় «» ঢাকার পথে প্রধানমন্ত্রী,পথে পথে নির্বাচনী পথসভায় শেখ হাসিনা «» ঢাকা-১৮ আসনে ঝুলছে সাহারা খাতুনের পোস্টার,ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী স্বপন শাহ কবির মাজার জিয়ারতে… «» শেখ হাসিনা কাঙালিনী সুফিয়ার পাশে উন্নত চিকিৎসার উদ্যোগ… «» মাদারীপুর এমপি নাছিমের মায়ের দোয়া নিলেন বিএনপির প্রার্থী খোকন নির্বাচনী প্রচারণায় «» প্রচারণায় তুঙ্গে সাজ্জাদ হোসেন সিদ্দিকীর ধানের শীষে ভোট ও দোয়া চেয়ে ছুটছেন… «» আরেকবার ভোট দিয়ে দেশ সেবার সুযোগ দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা «» অনলাইন নিউজ পোর্টাল ৫৪টি বন্ধ-খুলে দিতে বিক্ষোভ সমাবেশে আল্টিমেটাম

শেখ হাসিনাকে খোলা চিঠি শহিদুলের মুক্তির দাবিতে ভারতীয় ফটো সাংবাদিকের

দীপক দেবনাথ , কলকাতা : আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন বাংলাদেশি ফটোসাংবাদিক ড. শহিদুল আলমের গ্রেফতার ও নির্যাতনের নিন্দা জানিয়েছেন ভারতের বিশিষ্ট ফটো সাংবাদিক রঘু রাই। বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করার পাশাপাশি তাঁর দ্রুত মুক্তির দাবিতে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে খোলা চিঠিও লিখেছেন তিনি।

১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় তাঁর তোলা একাধিক ছবির জন্য ২০১২ সালে বাংলাদেশ সরকার তাঁকে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করে। শেখ হাসিনাকে উদ্যেশ্য করে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে রঘু রাই লেখেন, ‘আমি বিনীতভাবে অনুরোধ ও মিনতি করছি যে, যুব সমাজের সৎ ও সত্যবাদী প্রতিনিধিদের যেন শাস্তি দেয়া না হয়। গণতন্ত্রের উদ্দীপনা হিসেবে সত্যকে অবশ্যই তার নিজের জন্য বেঁচে থাকতে হবে, যেটা আপনার দেশের লাখ লাখ মানুষ ও আমাদের অনেকের হৃদয়কেও উদ্দীপ্ত করবে।’

উল্লেখ্য, নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন চলাকালে একটি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমকে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে সরকারের বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের সমালোচনা করার অভিযোগে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের মামলায় শহিদুল আলমকে গ্রেফতার করে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

চিঠিতে রঘু রাই লেখেন, ‘মাননীয়া ম্যাডাম, দৃক ও পাঠশালার প্রতিষ্ঠাতা শহিদুল আলম শেখ সাহেবের (বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান)-এর একজন ভক্ত এবং গত তিন দশক ধরে তাঁকে একজন ঘনিষ্ঠ বন্ধু হিসেবে জানার সুযোগ আমার হয়েছে…এটা মনে হচ্ছে প্রায় ২০-৩০ জন মানুষ শহিদুলকে তুলে নিয়ে গেছে এবং তার ওপর এতটাই অত্যাচার চালানো হয়েছে যে তিনি হাঁটতে পারছেন না। এই ঘটনায় আমার হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হচ্ছে।’

এ ব্যাপারে রঘু রাই ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমকে জানান ‘শেখ হাসিনার হাত সম্মানিত হওয়ায় কারণে আমার বলার অধিকার আছে এবং প্রধানমন্ত্রকে চিঠি লেখাটা আমার কর্তব্য ছিল। আমি ইউটিউবে শহিদুলের সাক্ষাৎকারটি দেখেছি…সে কখনোই কাউকে বলেনি যে, এটা করতে হবে বা ওটা করতে হবে না। তিনি কেবলমাত্র নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনকারী ছাত্র-ছাত্রীদের দাবিকে যুক্তি দিয়ে ব্যাখ্যা করেছেন। অতএব সেখানে উত্তেজনা ছড়ানোর প্রশ্নটা উঠছে কোথায়?’

বিডি-প্রতিদিন/০৯ আগস্ট, ২০১৮/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

প্রকাশিত সংবাদ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি,পাঠকের মতামত বিভাগে প্রচারিত মতামত একান্তই পাঠকের,তার জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়।
Skip to toolbar