শিরোনাম
বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন আসিয়ান বাংলাদেশ বিবিসি গোপালগঞ্জ মেলান্দহে দেবের ছড়া কারিগরি স্কুল এন্ড বি এম কলেজের অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ মেলান্দহে উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত। আদর্শ মুসলমানের গুণ ১০টি। আজকের জুমার খুতবা ইনশাআল্লাহ। মেলান্দহ উপজেলার দেবের ছড়া কারিগরি স্কুল এন্ড বিএম কলেজে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ” ভিডিওসহ মিরপুর বিআরটিএ আনসার কমান্ডার হাসেম অপকর্মের হোতা তিতাসের বাতাকান্দি বাজারে  স্বর্ণের দোকানে ডাকাতি’র ঘটনায় গ্রেফতার ৫ সিলেটের গোলাপগঞ্জ লেবার সর্দার আজিজ হত্যা মামলার যাবজ্জীবন জামালপুরে ইসলামী আন্দোলনের বিক্ষোভ মিছিল  জামালপুরে আওয়ামী লীগের শান্তি শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত 

কারাগারেই ১১ বছর” জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমান

71Times / ৫৪৮ Time View
Update : মঙ্গলবার, ১৫ আগস্ট, ২০২৩

সম্পাদকীয়ঃ বঙ্গবন্ধুর গোটা জীবন কেটেছে আন্দোলন-সংগ্রামে। ন্যায্য অধিকার ও স্বাধীনতা সংগ্রামে বারবার কারাবন্দি হয়েছেন তিনি। ৫৫ বছরের জীবনে বঙ্গবন্ধু ৪ হাজার ৬৮২ দিন কারাগারে ছিলেন। এর মধ্যে স্কুলের ছাত্র অবস্থায় ব্রিটিশ আমলে সাত দিন কারাভোগ করেন, বাকি ৪ হাজার ৬৭৫ দিন তাঁর জেলে কাটে পাকিস্তান আমলে। স্কুলের ছাত্র অবস্থায় ১৯৩৮ সালে সর্বপ্রথম কারাগারে যান। ওই সময় তিনি সাত দিন কারাভোগ করেন। এরপর ১৯৪৮ সালের ১১ থেকে ১৫ মার্চ পর্যন্ত তিনি পাঁচ দিন কারাগারে ছিলেন। একই বছর ১১ সেপ্টেম্বর কারাগারে গিয়ে তিনি মুক্তি পান ১৯৪৯ সালের ২১ জানুয়ারি। এ দফায় তিনি ১৩২ দিন কারাভোগ করেন।আওয়ামী লীগ নেতা শেখ মুজিব ১৯৪৯ সালের ১৯ এপ্রিল আবারও কারাগারে গিয়ে ৮০ দিন থেকে মুক্তি পান ওই বছরের ২৮ জুন। ওই বছরের সেপ্টেম্বরে তিনি আবারও ২৭ দিন কারাভোগ করেন। ১৯৪৯ সালের ২৫ অক্টোবর থেকে ২৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত ৬৩ দিন তিনি কারাভোগ করেন। ১৯৫০ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ১৯৫২ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি টানা ৭৮৭ দিন বঙ্গবন্ধু কারাগারে ছিলেন। ১৯৫৪ সালের নির্বাচনে জয়লাভের পরও বঙ্গবন্ধুকে কারাগারে যেতে হয়েছিল বলে জানান তোফায়েল। এ দফায় বঙ্গবন্ধু ২০৬ দিন কারাভোগ করেছিলেন। ১৯৫৮ সালে আইয়ুব খান মার্শাল ল’ জারির পর বঙ্গবন্ধু ১১ অক্টোবর গ্রেফতার হন। এ সময়ে একটানা ১ হাজার ১৫৩ দিন তাঁকে কারাগারে কাটাতে হয়।এ সময়ই বঙ্গবন্ধু একটানা সবচেয়ে বেশি সময় (৩ বছরের বেশি) কারাভোগ করেন। ১৯৬২ সালের ৬ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধু আবারও গ্রেফতার হয়ে ওই বছরের ১৮ জুন মুক্তি পান। এ দফায় তিনি কারাভোগ করেন ১৫৮ দিন। এরপর ১৯৬৪ ও ১৯৬৫ সালে বিভিন্ন মেয়াদে তিনি ৬৬৫ দিন কারাগারে ছিলেন। বাঙালির মুক্তির সনদ হিসেবে বিবেচিত ৬ দফা দেওয়ার পর এর পক্ষে জনমত গড়ে তুলতে দেশের বিভিন্ন স্থানে সমাবেশ করতে গিয়ে কয়েক দফায় বঙ্গবন্ধু গ্রেফতার হন। ৩২টি জনসভা করে বিভিন্ন মেয়াদে তিনি ৯০ দিন কারাভোগ করেন। এরপর ১৯৬৬ সালের ৮ মে আবারও গ্রেফতার হয়ে ১৯৬৯ সালের গণঅভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে ২২ ফেব্রুয়ারি মুক্তি পান শেখ মুজিব। এ সময় তিনি ১ হাজার ২১ দিন কারাগারে ছিলেন। কারামুক্তির পর ছাত্র-গণসংবর্ধনায় তাঁকে বঙ্গবন্ধু উপাধি দেওয়া হয়। ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চের প্রথম প্রহরে স্বাধীনতার ঘোষণা দেওয়ার পরপরই পাকিস্তান সরকার বঙ্গবন্ধুকে গ্রেফতার করে। তাঁকে পাকিস্তানের মিয়ানওয়ালী কারাগারে একটি সেলের মধ্যে রাখা হয়। এ দফায় তিনি ছিলেন ২৮৮ দিন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর